অফবিট

বিশ্বের সেরা ‘সুন্দরী শিশু’র তকমা পেয়েছে এই ছোট্ট মেয়েটা, যার সৌন্দর্যকে টেক্কা দিতে পারবে না ঐশ্বর্যও

সোশ্যাল মিডিয়ায় যে একরত্তি মেয়েটির সৌন্দর্য সকল নেটিজেনদের নজরকাড়ে সে হলো, ‘অনাহিতা হাশেমজাহেদ’ (Anahita Hashemjahed)। গোটা বিশ্বজুড়ে ‘সুন্দরতম শিশু’ হিসেবে আখ্যা পেয়েছে ইরানের (Iran) ইসফাহান শহরের ওই একরত্তি মেয়েটি। নেটদুনিয়ার পাতায় তার ছবি উঠে আসলেই, সেটি ভাইরাল (viral) হয়ে যায় নিমিষেই। নীল চোখ, মিষ্টি হাসি দিয়ে খুব সহজেই সকলের হৃদয়হরণ করে সেই ছোট্ট মেয়েটি। ২০১৬ সালের ১০ই জানুয়ারিতে, অনাহিতা জন্ম গ্রহণ করে ইরানে। এক মাথা কোঁকড়ানো চুল, নীল চোখ এবং মিষ্টি হাসিতে; প্রথম থেকেই সকলকে তাক লাগিয়ে দিয়েছে সে ছোট্ট শিশুটি।


ইনস্টাগ্রামের পাতা থেকেই সর্বপ্রথম তার জনপ্রিয়তা উঠে আসে। অনাহিতার সোশ্যাল সাইটটি হ্যান্ডেল করেন তার মা; দিন দিন মেয়ের ফ্যান-ফলোয়ার সংখ্যা যেভাবে বেড়ে চলেছে, তাতে মাও অবাক হয়ে গেছে রীতিমত। সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্ট চালাতে তার মা কে বেশ কর্মঠ হতে হচ্ছে বর্তমানে! ২০১৮ সালে সর্বপ্রথম ইনস্টাগ্রামে তার ছবি পোস্ট করা হয়েছিল আর তার পর থেকেই গোটা বিশ্বে সাড়া ফেলে দেয় খুদে সুন্দরীটি। বিশ্বের অন্যতম সুন্দর ‘শিশু মডেল’ (child model) হিসেবেও আখ্যা পেয়েছে অনাহিতা। তাকে একঝলক দেখার জন্য বসে থাকে গোটা নেটজগৎ।


যেখানে অনাহিতা নিজের রূপের মাধুর্যে দর্শকদের মন কেড়ে নিচ্ছে, সেই বিশ্বেই আজও মেয়েদেরকে গলগ্রহ কিংবা পরিবারের মাথা ব্যথার কারণ হিসেবে ধরা হয়! আজও অনেক পরিবারে কন্যা ভ্রূণ হত্যার কাহিনী শোনা যায়। তবে অনাহিতার বাবা মায়ের মতো এরকম অনেক বাবা-মা আছে, যারা তাদের মেয়েদের সাফল্যকে এগিয়ে নিয়ে চলে। নিজেদের কন্যা যেন পুত্রসম হয়ে ওঠে বা তার থেকেও অধিক ভালো হয়, সেক্ষেত্রে অনেক কন্যা সন্তানের বাবা-মা এগিয়ে আসে; ঠিক যেমন অনাহিতার ক্ষেত্রে হয়েছে।

Related Articles