অফবিট

আম পাতা দিয়েই খুব সহজে করুন আম গাছের চাষ, ফলন হবে দুর্দান্ত, দেখে নিন সহজ কিছু পদ্ধতি

‘ফলের রাজা’ বলে আখ্যা দেওয়া হয় আমকে (Mango); কমবেশি সকলের প্রিয় এই ফল। গ্রীষ্মকালে বিভিন্ন প্রজাতির আম পাওয়া যায় গোটা দেশজুড়ে; যেমন আম্রপালি, হিমসাগর, ল্যাংড়া গোপালভোগ প্রভৃতি। বাজার চলতি কেনা আমের থেকে, অনেকেই আবার নিজের বাড়ির বাগানে আমগাছ বসিয়ে জৈব পদ্ধতিতে উৎপন্ন ফল খেতেই অধিক পছন্দ করে। আম গাছ থেকে ফল খাওয়ার পাশাপাশি বিভিন্ন আচার-অনুষ্ঠানে আম্রপল্লব বা আমের পাতাও ব্যবহার করা হয়।

আমে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে পুষ্টিগুণ; আমে উপস্থিত পটাশিয়াম রক্তাল্পতা দূর করে ও হার্টকে ভালো রাখে। এমনকি হাড়ের সমস্যা দূরীকরণেও আম বেশ কার্যকরী। ফলের পাশাপাশি আম পাতাও উচ্চ রক্তচাপ এবং ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখে। তবে অনেকেই ইচ্ছা থাকলেও বাড়িতে কম জায়গা থাকার জন্য, আম গাছের চাষ করতে পারেনা। তবে কয়েকটি সহজ পদ্ধতিতেই বাড়ির টবেই আমপাতা দিয়ে করা যাবে আম গাছের ফলন, দেখে নিন।

এই আম গাছের ফলন টবে করার জন্য একটি ছিদ্রযুক্ত টব নিতে হবে। এবার ওই ছিদ্রটিকে একটি মার্বেলের টুকরো দিয়ে বন্ধ করে দিতে হবে। এই পদ্ধতিতে আমগাছ চাষ করার জন্য দোআঁশ মাটির পরিবর্তে, সমুদ্রের নোনা মাটি নিলে বেশি ভালো হয়। মাটি দিয়ে সব টবটিকে পূর্ণ করে দেওয়ার পর, আম গাছের পাতাগুলিকে বোঁটার দিক করে ওই টবের মাটিতে ভালো করে পুঁতে দিতে হবে। নিয়মিত জল দেওয়ার পাশাপাশি, একটি ছায়াযুক্ত জায়গায় রাখতে হবে টবটি। ৪০ দিন পরেই দেখা, যাবে আম গাছের ছোট ছোট চারা বেরিয়েছে ওই টবের মধ্যে। এমনকি পাতাগুলি থেকে শিকড়ও বেরিয়ে আসবে। এরপর ওই পাতাগুলিকে টব থেকে তুলে নিতে হবে। অন্য একটি টবের মধ্যে চা পাতার গুঁড়ো দিয়ে, শিকড় যুক্ত আম পাতাগুলিকে আবারো পুঁতে দিতে হবে; ভালো করে ভিজিয়ে রাখতে হবে আমপাতা গুলিকে। এভাবেই কিছুদিনের মধ্যেই ওই টবটিতে আমপাতা থেকে আমগাছ সৃষ্টি হবে এবং ফলন হবে খুব ভালো।

Disclaimer: কৃষি বিজ্ঞানীদের মতামতের ভিত্তিতে প্রতিবেদনটি লেখা হয়েছে। প্রয়োগে ফলাফল ভিন্ন হতে পারে। তাই প্রয়োগের আগে বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ নেওয়া আবশ্যক।

Related Articles