স্বস্তি নেই পুজোতেও, গভীর নিম্নচাপের জেরে ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস দিয়েছে হাওয়া অফিস

Heavy Rainfall

মাত্র কিছুদিন আগেই সৃষ্টি হওয়া ব্যাক-টু-ব্যাক নিম্নচাপের প্রভাবে বানভাসি পরিস্থিতি দক্ষিণবঙ্গে। পুজোর আগেই এবারে ভাসতে চলেছে উত্তরবঙ্গের একাংশ। অন্তত তেমনটাই পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দপ্তরের তরফ থেকে। ইতিমধ্যে গতকাল থেকেই দফায় দফায় উত্তরবঙ্গের কয়েকটি জেলায় শুরু হয়ে গিয়েছে বৃষ্টিপাত। উত্তরবঙ্গের দার্জিলিং, কালিংপং, জলপাইগুড়ি, আলিপুরদুয়ার এবং মালদাহ বেশ কিছু অংশে শুরু হয়েছে বৃষ্টিপাত। নিম্নচাপের জেরে আজ রবিবার এবং আগামীকাল সোমবার উত্তরবঙ্গে বৃষ্টির পরিমাণ আরও বাড়বে এমনটাই আশঙ্কা করছে আলিপুর আবহাওয়া দপ্তর।

পশ্চিম বিহার ও উত্তরপ্রদেশের কাছাকাছি বর্তমানে অবস্থান করছে নিম্নচাপটি। ধীরে ধীরে তা আরো পূর্ব দিকে অগ্রসর হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এর ফলে আজ এবং আগামীকাল উত্তরবঙ্গে রয়েছে ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা। উত্তরবঙ্গের বেশকিছু জেলায় অতি ভারী বৃষ্টির জন্যে জারি করা হয়েছে আগাম সর্তকতা। উত্তরবঙ্গের পাশাপাশি আগামী একদিন রেহাই পাবেনা দক্ষিণ বঙ্গের জেলা গুলি। দক্ষিণবঙ্গের আকাশ আংশিক মেঘলা থাকার সম্ভাবনা থাকছে। হতে পারে হালকা থেকে মাঝারি দু-এক পশলা বৃষ্টি। কলকাতা এবং কলকাতার সংলগ্ন বেশ কিছু অঞ্চলে আগামী একদিনে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা লক্ষ্য করা যাবে ৩৪ ডিগ্রী সেলসিয়াসের কাছাকাছি এবং সর্বনিম্ন তাপমাত্রা লক্ষ্য করা যাবে ২৭ ডিগ্রী সেলসিয়াসের আশেপাশে।

বঙ্গোপসাগরে তৈরি হওয়া নতুন নিম্নচাপটি দক্ষিণের জেলা গুলি অতিক্রম করে পাড়ি দিয়েছে পশ্চিমের জেলা গুলির উপর। পরে তা পশ্চিম বিহার এবং সংলগ্ন উত্তরপ্রদেশের উপর দিয়ে এগিয়ে এসেছে পূর্বদিকে। এখন সেই নিম্নচাপটি অবস্থান করছে পশ্চিম বিহার এবং মধ্যপ্রদেশের উপরে। এর জন্যই আগামীকাল অতি ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা থাকছে উত্তরের একাধিক জেলায়। এরমধ্যে দার্জিলিং, কালিম্পং, জলপাইগুড়ি, আলিপুরদুয়ার উল্লেখযোগ্য। ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা থাকছে পশ্চিমের মালদহ, মুর্শিদাবাদ, কোচবিহার এবং উত্তর ও দক্ষিণ দিনাজপুরে। প্রবল বৃষ্টির জেরে রয়েছে পার্বত্য এলাকায় ধ্বস নামার আশঙ্কা। একই সঙ্গে বাড়তে পারে নদীর জল স্তর ও।