অফবিটনিউজ

সমুদ্র থেকে ৬০০ কেজি প্লাস্টিক সংগ্রহ করে সামুদ্রিক জীবের শ্বাস ফেরাল ৮ বছরের মেয়ে

৮ বছরের একটি মেয়ে বন্ধুদের সঙ্গে খেলার বয়সে পৃথিবী পরিষ্কার করছে। ভিন্ন মানুষের ভিন্ন ভিন্ন শখ থাকে, সে কথা প্রায় সবারই জানা। তবে মাত্র ৮ বছরের একটি মেয়ে সমুদ্রের তলায় সাঁতার কেটে ৬০০ কেজি প্লাষ্টিক উদ্ধার করেছে। নিশ্চয়ই বিশ্বাস করলেন না? আর করবেনই বা কি করে। শুধু সাঁতার তো নয়। একেবারে ‘স্কুবা ডাইভিং’, যাকে বলে সমুদ্রের তলায় এক অন্য পৃথিবীতে প্রবেশ। সেখান থেকেই মেয়েটি ও তার বাবা উদ্ধার করেছেন এই আবর্জনা।

থারাগাই আরাথানা (Thaaragai Aarathana) নামের কারাপ্পাকম, চেন্নাইয়ের এই একরত্তি মেয়েটি তার কাজের মাধ্যমে শিরোনামে উঠে এসেছে। জানা যাচ্ছে, ৫ বছর বয়স থেকেই সে গভীর সমুদ্রে সাঁতার কাটে। তার বাবার নাম আরবিন্দ থারুণশ্রী (Aravind Tharunsri), যিনি পেশায় একজন স্কুবা ডাইভিং এক্সপার্ট ও ইনস্ট্রাকটর। তিনি তার মেয়েকে জন্মের কিছু দিনের থেকেই জল ও সাঁতারের সাথে পরিচয় করিয়ে দিয়েছিলেন।

আরবিন্দ জানিয়েছেন – ‘আমি প্রায় ২০ বছর ধরে এই কাজ করে চলেছি। জলের তলায়ও একটি পৃথিবী আছে যা আমাদের অজানা। বাচ্চাদের ছোট থেকেই জলের সাথে পরিচয় করানো ও সাঁতার শেখানো খুব দরকারি। আমি একজন স্কুবা ড্রাইভার হওয়ায় দেখেছি জলের তলায় প্রচুর প্লাস্টিক ও আবর্জনা পরে থাকে। যে কারণে আমি ১৭ বছর ধরে ১০,০০০ কেজি প্লাস্টিক জলের তলা থেকে উদ্ধার করেছি।’

তিনি আরও বলেন – ‘তবে এখন আমি ও আমার মেয়ে একসাথে এই কাজটি চালাচ্ছি। আমরা দুজনে একসাথে এখনও পর্যন্ত ৬০০ কেজি প্লাস্টিক বোতল উদ্ধার করেছি জলের তলা থেকে। যা প্লাস্টিক বিক্রেতার কাছে বেঁচে দিয়েছি। সেগুলি দিয়ে তারা রি-সাইকেল করে অন্য কোনো জিনিস তৈরী করবে। আর আমরা যে টাকাটি পেয়েছি সেটা তামিলনাড়ু সরকারের অধীন ‘Department Of Environment’-এ দান করে দেবো।’


মাত্র ৮ বছরের এই মেয়েটি ও তার বাবা পরিবেশকে বাঁচানোর এক অদম্য লড়াই লড়ে চলেছেন। এই পরিবেশ সবার, তাই প্রতিটি মানুষের উচিত একে রক্ষা করা। আরবিন্দ সব শেষে বলেছেন – ‘ছোট থেকেই আমাদের সবার উচিত আমাদের বাচ্চাদের পৃথিবী সম্পর্কে জানানো। যা ভবিষ্যতে তাদের নিজেদেরই হতে চলেছে’।

Related Articles