আর ১৮ নয়, ভারতের মেয়েদের বিয়ের নূন্যতম বয়স হতে চলেছে ২১, প্রস্তাব পাস কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার

Indian Woman's Minimum Age Of Marriage

ভারতবর্ষে মেয়েদের বিয়ের নূন্যতম বয়স কত হওয়া উচিত দীর্ঘদিন ধরেই আলোচনা শোনা যাচ্ছিল। এই দেশে ছেলেদের বিয়ের নূন্যতম বয়স ২১ বছর ও মেয়েদের ১৮ বছর। গত অক্টোবর মাসে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ঘোষণা করেছিলেন এই বিষয়ে কেন্দ্র খুব দ্রুত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবে। গত বুধবার কেন্দ্রীয় মন্ত্রীসভায় মেয়েদের বিয়ের নূন্যতম বয়স ১৮ থেকে ২১ বছর করার জন্য প্রস্তাব পেশ করা হয়েছে।

মোদী বিবৃতি পেশ করেছিলেন,”মেয়েদের বিয়ের ঠিক বয়স কত হওয়া উচিত, তা নিয়ে শলা-পরামর্শ চলছে। দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে সচেতন মহিলারা আমাকে চিঠি পাঠিয়েছেন। এ বিষয়ে দ্রুত সিদ্ধান্ত নেওয়ার অনুরোধ করেন তাঁরা। অনেকে প্রশ্ন করেছেন, কমিটির রিপোর্ট এখনও আসেনি কেন? আমি তাঁদের সকলকে আশ্বস্ত করতে চাই যে, রিপোর্ট আসার সঙ্গে সঙ্গে খুব তাড়াতাড়ি সরকার ওই ব্যাপারে পদক্ষেপ করবে।”

গত বছরের জুন মাসে কেন্দ্রীয় নারী ও শিশু কল্যাণ মন্ত্রকের পক্ষ থেকে আলোচনার জন্য একটি উচ্চপর্যায়ের কমিটি গঠন করা হয়েছিল। কমিটির নেতৃত্ব প্রদান করেছিলেন সমতা পার্টির প্রাক্তন সভাপতি জয়া জেটলি। চলতি মাসে সেই কমিটি তাদের রিপোর্ট পেশ করে। রিপোর্টে মেয়েদের বিয়ের বয়স ২১ বছর করার স্বপক্ষে তারা নিজেদের মতামত প্রকাশ করেছেন।

ভারতে মেয়েদের বিয়ের নূন্যতম বয়স ১৮ বছর ও ছেলেদের বিয়ের নূন্যতম বয়স ২১ বছর-এই নিয়ে এর আগেও অনেক আলোচনা ও বিতর্ক হয়েছে। বয়সের পার্থক্য ঘোচানোর দাবিতে আগেও বহু জন বহু কথা বলেছেন। রাজ্যসভায় এক লিখিত প্রশ্নের উত্তরে নারী ও শিশুকল্যাণমন্ত্রী স্মৃতি ইরানি বলেছিলেন, মেয়েদের বিয়ের নূন্যতম বয়স কতো হ‌ওয়া উচিৎ সেই বিষয়ে আলোচনার জন্য কেন্দ্র এক টাস্কফোর্স গঠন করেছে। বিয়ে ও মাতৃত্বের মধ্যে গড় সময়ের পার্থক্য, এই বিষয়সংক্রান্ত স্বাস্থ্য ও পুষ্টি, জন্মকালীন সময়ে মা ও শিশুমৃত্যুর হার, অপুষ্টি সমস্যায় ভোগা শিশুর হার, সন্তানধারণের সময়ে বিভিন্ন শারীরিক সমস্যা ইত্যাদি বিষয়ে পর্যালোচনা করে ওই কমিটি রিপোর্ট প্রকাশ করবে। গতবছরের স্বাধীনতা দিবসে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী তাঁর বক্তব্যে বলেছিলেন,”দেশের মেয়ে-বোনেদের স্বাস্থ্য নিয়ে উদ্বিগ্ন সরকার। মেয়েদের অপুষ্টির হাত থেকে বাঁচাতে তাঁদের সঠিক বয়সে বিয়ের প্রয়োজন।”