দেশে হু হু করে বাড়ছে করোনা সংক্রমণ। ভাইরাসের দা"/>
নিউজ

লকডাউন নিয়ে বড় ঘোষণা সরকারের!

দেশে হু হু করে বাড়ছে করোনা সংক্রমণ। ভাইরাসের দাপটে বিপর্যস্ত জনজীবন। এই পর্যন্ত দেশে দুজন মানুষের মৃত্যু হয়েছে করোনায়। তৃতীয় ঢেউ অর্থাৎ ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট যথেষ্ট কার্যকর হয়েছে। সেই সঙ্গে নতুন আতঙ্ক ছড়াচ্ছে ওমিক্রন। তবে কি দেশে ফেরে লকডাউন ঘোষিত হতে পারে? এবার বছরের প্রথম দিন দেশবাসীকে আশার কথা শোনালেন প্রধানমন্ত্রী। জানালেন পুরোপুরি লকডাউন করা যাবে না। এতে বিপর্যস্ত হতে পারে এই দেশের আর্থসামাজিক অবস্থা। সমগ্র দেশে আংশিক লকডাউনের কথাই ভাবনা চিন্তা করা হচ্ছে বলে জানান প্রধানমন্ত্রী। সঙ্গে মানতে হবে কিছু বিধিনিষেধ।

এক মাস আগেও অনিয়ন্ত্রিতভাবে সংক্রমণ ছড়ায়নি দেশে। তবে বীজ বপন করেছিল লন্ডন। লন্ডনের আন্তর্জাতিক বিমান ভারতে অবতরণ করার পরেই বেশ কয়েক জনের দেহে করোনা ভাইরাসের নতুন সংক্রমনের হদিশ পাওয়া যায়। নাইজেরিয়া ফেরত এক বৃদ্ধ প্রথম ওমিক্রন আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন। তারপর রাজস্থানের এক প্রৌঢ় ডেলটা প্লাস ভ্যারিয়েন্ট আক্রান্ত হন। তাদের দুজনেরই বয়স পঞ্চাশের উপর। দুজনেই মারণ ভাইরাসের বলি হন। তারপর থেকে নড়েচড়ে বসে বিভিন্ন রাজ্য এবং কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য দপ্তর। মহারাষ্ট্র রাজস্থান দিল্লি পশ্চিমবঙ্গের মতো রাজ্যগুলিকে সতর্ক হতে বলা হয়।

তবে 2019 এবং 2020 সালে লকডাউন দেখেছিল গোটা দেশ। গৃহবন্দী দিন আনা দিন খাওয়া মানুষের হাতে একটা টাকাও নেই। বেসরকারি ক্ষেত্রে কাজ হারিয়েছেন অনেকেই। কারোর ব্যবসা একেবারে বন্ধ। ঘরে বসে থেকে না খেয়ে মরেছেন বহু মানুষ। সমগ্র দেশে তো বটেই সেই সঙ্গে আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে অর্থনৈতিক মন্দা দেখা গিয়েছে। বিশেষজ্ঞ এবং অর্থনীতিবিদরা বলছেন এই মন্দা আগামী 15 বছরেও কাটানো সম্ভব নয়। এভাবে অবস্থায় ফের কি লকডাউন এই পথে হাঁটছে দেশ? নানান তর্কবিতর্কের অবসান ঘটালেন প্রধানমন্ত্রী। জানিয়ে দেয় আংশিক লকডাউন করা হতে পারে বিশেষত জনবসতিপূর্ণ জায়গায় নিয়ন্ত্রিত লোকসংখ্যা সামাজিক উৎসব অনুষ্ঠান স্থগিত রাখতে হবে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও অফিস প্রয়োজনে বন্ধ রাখতে হবে। ডিজিটাল মাধ্যমে চলবে বেশিরভাগ কাজকর্ম। সেইসঙ্গে স্বাস্থ্য পরিকাঠামো উন্নত করার দিকে জোর দেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী সাধারণ মানুষকে বেপরোয়া না হতে অনুরোধ করেন। তিনি সকলকে মাক্স পরা সামাজিক দূরত্ব বিধি মেনে চলা এবং স্যানিটাইজার ব্যবহার করার পরামর্শ দেন। আরো জানান কেবল প্রশাসনের পক্ষে এই বিপুল সংক্রমণকে ঠেকিয়ে রাখা সম্ভব নয়। সেই সঙ্গে আবারও স্বাস্থ্যকর্মীদের ভুয়সি প্রশংসায় পঞ্চমুখ হয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

Related Articles