Wednesday, December 1, 2021

২৮ হাজার লুপ্তপ্রায় কচ্ছপের প্রাণ বাঁচিয়ে আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পেলেন উত্তরপ্রদেশের এই মেয়েটি

গোটা জীবনে কচ্ছপ ধ্যান জ্ঞান হয়ে উঠেছে লখনৌ এর অরুনিমার। আপাতত কচ্ছপকে বাঁচানোর তাগিদে তিনি তার জীবন অতিবাহিত করছেন। রাত দিন কচ্ছপ বাঁচানোর তাগিদে তিনি কচ্ছপের বাসস্থান যথা নদীর জল ভূমিকে সংরক্ষণের কাজ করে চলেছেন। শুধু নিজে কাজ করছেন তাই না সবাইকে এই কাজ করতে উৎসাহ দিচ্ছেন এবং যাতে কচ্ছপের চোরা শিকারিদের আটকানো যায় এমনও চেষ্টা করে যাচ্ছেন।

Arunima

দীর্ঘ আট বছরে বাঁচিয়েছেন ২৮০০০ কচ্ছপের প্রাণ। উত্তরপ্রদেশে লখনৌ এর বাসিন্দা অরুনিমা সিংহের ঝুলিতে এবার আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি। তবে শুধুমাত্র কচ্ছপ ৮০ টি প্রজাতি নয় জলের কচ্ছপ ছাড়াও উত্তরপ্রদেশের গঙ্গায় থাকা কুমির, ঘড়িয়াল, ভোঁদড় পশু ইত্যাদি বিভিন্ন প্রাণীর দেখাশোনার দায়িত্ব নিয়েছেন তিনি এবং মিষ্টি জলের বাস্তুতন্ত্র দেখাশোনার দায়িত্ব অরুনিমা নিয়ে নিয়েছেন। ছেলেবেলায় দাদুর সঙ্গে যখন গঙ্গার ধারে বেড়াতে যেতেন, তখন থেকেই তিনি এই জলের বাস্তুতন্ত্রের প্রতি অনেকটাই উৎসাহিত ছিলেন জলের মধ্যে কি হচ্ছে জলের মধ্যে থাকা জীবজন্তুদের নিয়ে তার কৌতূহল ছিল। সেই ছেলেবেলা থেকেই। সামান্য কৌতুহল যে তাকে এতটা দূর এগিয়ে নিয়ে যাবে সেটা আর কে জানতো?

Arunima

মানুষের মনে যদি ইচ্ছা থাকে, সামনে এগিয়ে যাওয়ার বা নতুন কিছু করার তাহলে সেই ইচ্ছা পূরণ হবেই হবে। অল্প বয়সেই অরুনিমা করে তা দেখিয়ে দিয়েছে। আপাতত অরুনিমার ঝুলিতে আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি, আন্তর্জাতিক সম্মান নিয়ে বন্য প্রেমিকরা যথেষ্ট আনন্দিত। বর্তমানে পরিবেশ দূষণের জন্য জলাশয়,ডোবা ইত্যাদি নানান জায়গা ক্রমশ দূষিত হচ্ছে পরিবেশ দূষণ অর্থাৎ জল দূষণ বায়ু দূষণ ইত্যাদি দূষণের ফলে এই জলের মধ্যে থাকা নানান ধরনের প্রাণীরা আজ বিপন্ন।

Arunima

এই জাতিগুলোকে বাঁচানোর ভীষণ দরকার। তাই তো জলাশয় এবং ডোবার বাস্তুতন্ত্র কে সঠিকভাবে লালন পালন করতে হবে তবে এরা বেঁচে থাকবে যত বাড়ছে ততোই জলের মধ্যে অক্সিজেনের পরিমাণ কমে যাচ্ছে। আর যার ফলে জলের মধ্যে প্রাণীদের হেসে খেলে বাঁচার ইচ্ছা শক্তি কমে যাচ্ছে, প্রাণ শক্তি কমে যাচ্ছে। অরুনিমার মত নতুন প্রজন্মের ছেলেমেয়েরা যদি এগিয়ে আসে, তবেই পৃথিবী এবং পৃথিবীতে বসবাসকারী মানুষ ছাড়াও অন্যান্য প্রাণীরা অনেক ভালোভাবে বেঁচে থাকতে পারবে।

⚡ Trending News

আরও পড়ুন