নিউজলাইফস্টাইল

বছর শেষে ভাগ্য ফেরাতে পারে এই পদ্ধতি!

ইদানিং বাজারে পুরনো অচল কয়েন এবং নোটের চাহিদা দিন দিন বেড়েই চলেছে। অনেকেই পুরনো দিনের নোট এবং কয়েন সংগ্রহ করতে পছন্দ করেন। অনেকে নিজেদের এই জমানো পুরনো দিনের নোট এবং কয়েন বিক্রয় করে ভালো টাকা উপার্জন করে থাকেন। এই সকল পুরনো দিনের অচল নোট এবং কয়েন বর্তমানে বিক্রয় করে আপনি ৫ লাখ টাকা পর্যন্ত উপার্জন করতে পারেন।

এই সকল পুরনো অচল নোট এবং কয়েন বিক্রি করার জন্য রয়েছে বিভিন্ন ধরনের অনলাইন ই-কমার্স ওয়েবসাইট অথবা অ্যাপ। এসকল ই-কমার্স বা বাণিজ্যিক প্ল্যাটফর্ম গুলোর মধ্যে অন্যতম হলো ওএলএক্স (OLX), কুইকার (Quikr), ইবেয় (eBay), ইন্ডিয়ামার্ট (IndiaMart), কয়েনবাজার.ইন (Coinbazaar.in) ইত্যাদি। এসকল অনলাইন বাণিজ্যিক প্লাটফর্মে পুরনো দিনের অচল নোট এবং কয়েন বিক্রয়ের জন্য নিলামের বন্দোবস্তও করা রয়েছে।

বর্তমানে কৃষকের ট্রাক্টর চালানোর ছবি যুক্ত ৫ টাকার নোট বিপুল পরিমাণে বিক্রয় হচ্ছে এই সকল অনলাইন প্লাটফর্মে। ১৯৯৪, ১৯৯৫, ১৯৯৭, এবং ২০০০ সালে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া দ্বারা প্রচলিত ২ টাকার কয়েন বর্তমানে চড়া দামে বিক্রি হচ্ছে এই সকল ওয়েবসাইটে থেকে। এমনকি পুরনো দিনের ২৫ পয়সার কয়েনের চাহিদার পরিমাণও বৃদ্ধি পেয়েছে বর্তমান বাজারে।

১৮৮৫ সালে ব্রিটিশ শাসকের দ্বারা প্রচলিত ১ টাকার কয়েনের বর্তমান বাজারে বিশাল চাহিদা আছে। এছাড়াও ১৯৮৪ সালে প্রচলিত ২ টাকার পুরনো কয়েনের ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। যেই সকল পুরনো অচল নোট এবং কয়েনে বিশেষ সিরিয়াল সংখ্যা, বিশেষ সমন্বয় এবং বিশেষ ছবি রয়েছে সেই সকল নোট এবং কয়েন বর্তমানে চড়া দামে এইসব অনলাইন বাণিজ্যিক প্লাটফর্মে বিক্রি হচ্ছে। এছাড়াও সীমিত সংস্করনের কয়েন এবং নোটের চাহিদাও বর্তমানে বহুগুণ বৃদ্ধি পেয়েছে।

অনলাইনে এইসকল পুরনো দিনের নোট বা কয়েন বিক্রি করার জন্য প্রথমে আপনাকে নিজের পছন্দমত কোন ওয়েবসাইট বেছে নিতে হবে। এরপর সেই ওয়েবসাইটে লগইন করে নিজেকে বিক্রেতা রূপে নথিভুক্ত করতে হবে। এরপর আপনার কাছে থাকা এইসকল পুরনো নোট এবং কয়েনের সুস্পষ্ট ছবি তুলে সেই ওয়েবসাইটে আপলোড করতে হবে।

সেই সাথে আপনার নোট এবং কয়েনের নিচে সেই সম্পর্কিত সকল তথ্য লিখে দিতে হবে। পাশাপাশি আপনার ঠিকানা, ফোন নম্বর এবং কোন নোট এবং কয়েন কি দামে বিক্রয় করা হবে সেই সম্পর্কেও লিখে দিতে হবে। এরপর আপনার দেওয়া নোট বা কয়েন কিনতে ইচ্ছুক ক্রেতারা আপনার সাথে যোগাযোগ করে নেবেন। এরপর আপনি নিজের ইচ্ছে মত দাম নির্ধারণ করে সেই কয়েন বা নোটটি বিক্রয় করতে পারেন।

Related Articles