ময়দা দিয়ে খুব সহজে বানিয়ে ফেলুন অসাধারণ স্বাদের এই রেসিপি, রইল পদ্ধতি

Bengali Recipe

এমন অনেকেই আছেন যাঁরা ভাত বা ওইজাতীয় খাবার খেতে খুব একটা পছন্দ করেন না। তার থেকে রুটি বা ওইজাতীয় খাবার তাঁদের বেশি ভালো লাগে। অথচ সবসময় একঘেয়ে রুটি মুখে রোচে না। পাশাপাশি, বিকেলের দিকে মুখরোচক কিছু খাবার খেতে সকলেই পছন্দ করেন।

আজ আপনাদের সঙ্গে তাই ভাগ করে নেবো তেমনই এক বিকেলের জলখাবারের রেসিপি যা একবার খেলে মুখে এর স্বাদ লেগে থাকতে বাধ্য। এই রেসিপি দেখে বাড়িতেই বানিয়ে ফেলুন খাস্তা পুরভরা জলখাবার।

•উপাদান:
১) ময়দা/আটা
২) নুন
৩) সাদা তেল
৪) গোটা জিরে
৫) পেঁয়াজ কুচি (২-৩ টি)
৬) টমেটো কুচি
৭) কাঁচালঙ্কা কুচি
৮) জিরে গুঁড়ো
৯) চাট মশলা
১০) ধনে গুঁড়ো
১১) শুকনো লঙ্কা গুঁড়ো
১২) ধনেপাতা কুচি
১৩) কর্নফ্লাওয়ার/বেসন

•প্রণালী:

একটি পাত্রে বা মিক্সিং বোলে এক কাপ ময়দা বা আটা নিয়ে তার মধ্যে সামান্য নুন, এক চামচ সাদা তেল দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিতে হবে। এরপর অল্প অল্প করে জল দিয়ে ময়দা মেখে নিতে হবে। ময়দা মেখে ডো প্রস্তুত হয়ে গেলে ১০-১৫ মিনিট ঢাকা দিয়ে রাখতে হবে, এতে ডো নরম থাকবে ও শুকিয়ে যাবে না।

এরপর ফ্রাইং প্যানে এক চামচ সাদা তেল দিয়ে এক চামচ গোটা জিরে দিয়ে খানিকক্ষণ নেড়ে নিতে হবে। এর মধ্যে পেঁয়াজ কুচি, ৩ চামচ টমেটো কুচি, ইচ্ছেমতো কাঁচালঙ্কা কুচি দিয়ে খানিকক্ষণ নেড়ে ভাজা ভাজা করে নিতে হবে। টমেটো কুচির বদলে কেচাপ‌ও ব্যবহার করা যেতে পারে। এবারে এর মধ্যে স্বাদমতো নুন, হাফ চামচ জিরে গুঁড়ো, হাফ চামচ চাট মশলা, হাফ চামচ ধনে গুঁড়ো, হাফ চামচ শুকনো লঙ্কা গুঁড়ো, ২ চামচ ধনেপাতা কুচি দিয়ে নাড়াচাড়া করে পেঁয়াজের সাথে মিশিয়ে নিতে হবে। এই পুর আঠালো করার জন্য ১ চামচ কর্নফ্লাওয়ার বা বেসন মিশিয়ে দিতে হবে।

এরপরে মেখে রাখা ময়দা থেকে ছোট ছোট লেচি আলাদা করে সামান্য তেল দিয়ে একটি একটি করে বেলে নিয়ে তার মধ্যে পুর ভরে মুখ বন্ধ করে আটকে দিতে হবে। পুর ভরা হয়ে গেলে ফ্রাইং প্যানে তেল গরম করে তার মধ্যে একে একে লেচিগুলো দিয়ে ভালো করে ভেজে নিতে হবে।

হালকা সোনালী রঙ না আসা অব্দি উল্টেপাল্টে ভাজতে হবে। ভালো করে ভাজা হয়ে গেলে গরম গরম পরিবেশন করে ফেলুন পুরভরা এই জলখাবার।