বিনোদনভাইরাল ভিডিও

মানুষ নয়! প্রয়াত লতাজির গান শুনে অঝোরে কাঁদছে পোষ্য কুকুর, তুমুল ভাইরাল ভিডিও

গত 6 ই ফেব্রুয়ারি সরস্বতীলোকে যাত্রা করেছেন লতা মঙ্গেশকর (Lata Mangeshkar)। শোকস্তব্ধ আসমুদ্রহিমাচল। সবাই এককথায় বলছেন, বলিউড ইন্ডাস্ট্রির সবচেয়ে বড় ক্ষতি হয়ে গেল। ইতিমধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। ভিডিওতে লতার গলার আওয়াজ শুনে কাঁদছে তাঁর পোষা সারমেয়।

অন্তত এমনটাই দাবি করছেন ভিডিও আপলোডকারিরা। ‘টিউবলাইট নিউজ’ নামে একটি ইউটিউব চ্যানেল ভিডিওটি আপলোড করেছে। ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, টিভিতে চলছে লতার গান। তা শুনে কান্নার ভঙ্গিমা করছে সারমেয়টি। লতার মৃত্যুর কয়েক ঘণ্টার মধ্যে এই ভিডিওটি ভাইরাল হয়ে যায় সোশ্যাল মিডিয়ায়। কয়েকদিনের মধ্যেই এই ভিডিওর ভিউ ছাড়িয়ে যায় চৌষট্টি হাজার। লতার সারমেয় বলে দাবি করা হলে মন খারাপ হয়ে যায় নেটিজেনদের। কিন্তু প্রকৃত সত্য অন্য।


ভাইড়াল গিগার এর তরফে ভিডিওটির সত্যতা যাচাই করা সম্ভব না হলেও ইন্সটাগ্রামের সৌজন্যে হাতে এসেছে বেশ কিছু তথ্য। ইন্সটাগ্রামে লতা মঙ্গেশকরের একটি অ্যাকাউন্ট রয়েছে। অ্যাকাউন্টটি এখনও অবধি রিমেম্বারিং করা হয়নি। লতার সেই অ্যাকাউন্টে তিনি নিজের জীবদ্দশায় তাঁর পোষ্য সারমেয়দের ছবি আপলোড করেছেন। শৈশব থেকেই তাঁর সারমেয়-প্রীতি রয়েছে। শুধু তিনিই নন, মঙ্গেশকর পরিবারের সদস্যরা প্রায় প্রত্যেকেই পশুপ্রেমী। বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন প্রজাতির সারমেয় হয়েছে লতার চলার পথের সঙ্গী, তাঁর চারপেয়ে সন্তান। বর্তমানে লতার একটি সাদা রঙের ল্যাব্রাডর প্রজাতির সারমেয় রয়েছে যার নাম বিট্টু (Bittu)। লতাকে হারিয়ে বিট্টুও মনমরা হয়ে পড়েছে। মাঝে খাওয়া-দাওয়া ছেড়ে দিয়েছিলেন সে। কিন্তু মঙ্গেশকর পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের প্রচেষ্টায় আবারও অল্প করে খাবার খাচ্ছে বিট্টু। কিন্তু আগের মতো হাসি-খুশি নেই সে। প্রকৃতপক্ষে, পশু-পাখিরা অত্যন্ত সংবেদনশীল হয়। ফলে মৃত্যুর মতো আঘাত সহজে তারা মেনে নিতে পারে না।


কিন্তু ভিডিওতে দৃশ্যমান সারমেয়টি লতার নয়। অনেকে হয়তো অবাক হবেন, লতার গানে তার অভিব্যক্তি দেখে। প্রকৃতপক্ষে, পশু-পাখিদেরও ভালো লাগা, খারাপ লাগা আছে। তারাও সুরের অস্তিত্ব বোঝে। অবলীলায় অনুকরণ করতে পারে। ইদানিং সোশ্যাল মিডিয়ায় বহু ভিডিও ভাইরাল হয় যেখানে শঙ্খ বাজলে সারমেয় তার মতো করে সুর করে ডাকে। এমনকি গান শুনেও তারা একই অভিব্যক্তি প্রকাশ করে। এক্ষেত্রেও একই ঘটনা ঘটেছে। ভিডিওতে দেখানো সারমেয়টি গান শুনে এই ধরনের রিয়্যাকশন দেয়। টিভিতে লতার গান চালানো হলে তখনও সে একই ভাবে রিয়্যাক্ট করেছে। এরপরেই সারমেয়টিকে ব্যবহার করে সোশ্যাল মিডিয়ায় পাবলিসিটির জন্য ভিডিওটি আপলোড করা হয়েছে এবং ভুল বার্তা প্রচারিত হয়েছে, এটি লতা মঙ্গেশকরের সারমেয়।

পরিশেষে একটাই প্রার্থনা, বিট্টু তার শোক কাটিয়ে উঠে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসুক। একইসঙ্গে একটি বিশেষ অনুরোধ, কোনো অবলা প্রাণীকে যেন পাবলিসিটির জন্য ব্যবহার না করা হয়। অবলা হলেও তাদের বোধশক্তি রয়েছে। তাদের ভালোবাসা নিঃস্বার্থ। মায়ায় ঘেরা অবলা প্রাণীদের সঠিক মর্যাদা দেওয়া উচিত।

Related Articles