×
বিনোদন

জিয়াগঞ্জে অত্যাধুনিক হাসপাতাল তৈরিতে উদ্যোগী অরিজিৎ সিং, গায়কের প্রশংসায় পঞ্চমুখ সকলে

Advertisements
Advertisements

টলিউড থেকে শুরু করে বলিউড সর্বত্রই গানের জগতের অন্যতম উজ্জ্বল নক্ষত্র হলেন ‘অরিজিৎ সিং’ (Arijit Sing)। ‘ফেম গুরুকুল’ থেকে গানের যাত্রা শুরু করলেও, সেইখানে সফলতা লাভ করতে পারেনি তিনি। বর্তমানে অন্যতম জনপ্রিয় গায়ক তিনি। দেশ বিদেশে ছড়িয়েছে তার খ্যাতির প্রসার। যদিও এখনো পর্যন্ত দেশের মাটিতেই একদম সাদামাটা বেশে থাকেন তিনি। মুর্শিদাবাদের জিয়াগঞ্জের ছেলে তিনি, স্বাভাবিকভাবেই নিজের জায়গার জন্য বেশ উন্নয়নমূলক পদক্ষেপ নিয়েছেন। ইতিমধ্যে জিয়াগঞ্জে একটি নার্সিং কলেজ খুলেছেন তিনি। ছেলেমেয়েদের স্পোকেন ইংলিশ শেখানোর ব্যবস্থাও করেছেন।

Advertisements

এর পাশাপাশি জিয়াগঞ্জের স্বাস্থ্য প্রকল্পের জন্য যথেষ্ট সতর্ক গায়ক। তিনি ঠিক করেছেন জঙ্গিপুর এলাকায় একটি মেডিকেল কলেজ এবং হাসপাতাল খুলবেন। সোমবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, মুর্শিদাবাদের সাগরদিঘী ধুমরা পাহাড় প্রশাসনিক সভা থেকে কথা ঘোষণা করেন এটি। আর তিনি জানিয়েছেন, তিনি যথাযথভাবে অরিজিৎ-এর পাশেই থাকবেন এই হাসপাতাল গড়ে তোলার জন্য। যদিও জিয়াগঞ্জে একটি লন্ডন মিশনারী হাসপাতাল রয়েছে কিন্তু অরিজিৎ সিং চান সেখানে একটি মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল গড়ে তুলতে কারণ ওই হাসপাতালে কোন অত্যাধুনিক পরিষেবা নেই।

 

View this post on Instagram

 

Shared post on

করনাকালীন পরিস্থিতিতে অরজিৎ সিং-এর মা করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন। তখন তাকে জিয়াগঞ্জের লন্ডন মিশনারি হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়েছিল কিন্তু সেখানকার পরিষেবা ভালো না থাকায় তাকে মুর্শিদাবাদ মেডিকেল কলেজে রেফার করা হয়। সেখান থেকে আবারো তাকে কলকাতার একটি বেসরকারি হাসপাতালে পাঠানো হয়েছিল কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি, মারা গিয়েছিলেন অরিজিৎ সিং-এর মা। এরপরে গায়ক সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন, একটি মেডিকেল কলেজ তিনি খুলবেন জঙ্গিপুরের মাটিতে। সেটি নিজের ঘনিষ্ঠ মহলেও জানিয়েছিলেন।

 

View this post on Instagram

 

Shared post on

অরিজিৎ সিং নিজের স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা ধৃতি ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে, জিয়াগঞ্জের হাসপাতাল থেকে অত্যাধুনিক করার চেষ্টা করেছিলেন। মেডিকেল কলেজ খোলার জন্য জেলা স্বাস্থ্য দপ্তরের সাথে বৈঠকও করেছিলেন। এছাড়াও জেলা মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিকের কাছ থেকে অনুমতিও চাওয়া হয়েছিল একাধিকবার।

Advertisements