×
বিনোদন

নিজের ছেলে-মেয়েকে ছেড়ে বৌমার প্রশংসায় পঞ্চমুখ শাশুড়ি শর্মিলা ঠাকুর!

Advertisements
Advertisements

ভারতীয় ক্রিকেট দলের অন্যতম সেরা খেলোয়াড় ছিলেন মনসুর আলী খান পতৌদি। আর তার সঙ্গে একপ্রকার বাড়ির অমতে গিয়ে বিয়ে করেন ঠাকুর বংশের মেয়ে শর্মিলা ঠাকুর। আর পতৌদি পরিবারে বিয়ে করে যখন তিনি আসেন তখন তিনি হয়ে ওঠেন টাইগারের বেগম। যদিও বিয়ের পরেও তিনি তার কাজ জারি রেখেছেন। বাংলা ও হিন্দি উভয় ইন্ডাস্ট্রিতে অভিনয় করে গিয়েছেন শর্মিলা ঠাকুর।

Advertisements

তিনি প্রথম বিকিনি এবং ব্রা পড়ে ট্যাবু ভেঙে ছিলেন। সেই সময় বিকিনি পরে অভিনয় শুট করে অত্যন্ত সাহসিকতার পরিচয় দিয়েছিলেন অভিনেত্রী। সত্যজিৎ রায়ের হাত ধরে তিনি বাংলা সিনেমায় প্রবেশ করেছিলেন। এরপর বহু বাংলা এবং হিন্দি হিট সিনেমা তিনি দর্শকদের উপহার দিয়েছেন।

তবে সম্প্রতি নিজের পরিবার নিয়ে মুখ খুলেছেন শর্মিলা ঠাকুর। তার ছেলে সইফ আলি খান এখন অভিনয় জগতে তার কাজ নিয়ে ব্যস্ত থাকলেও তাঁর কন্যা সোহা আলী খান বর্তমানে রুপোলি পর্দা থেকে দূরে আছেন। শর্মিলা জানিয়েছেন, তিনি যদি তার ছেলে ও মেয়েকে ম্যাসেজ করেন তাহলে তারা মেসেজের উত্তর দিতে অনেক দেরি করেন। সঙ্গে সঙ্গে উত্তর দেন না। সোহা অনেক পরে ফোন করে নেন এবং সইফ অনেক পরে রিপ্লাই দেন।

তবে তার বৌমা অর্থাৎ করিনা কাপুর খান কিন্তু উল্টো কাজটি করেন বলেই জানিয়েছেন শর্মিলা ঠাকুর। তিনি জানিয়েছেন, করিনা যতই ব্যস্ত থাকুক না কেন তার মেসেজ পৌঁছানো মাত্রই রিপ্লাই আসে। আর তাই খুব খুশি হন শর্মিলা ঠাকুর। এমনিতেও জানা গিয়েছে শাশুড়ির সঙ্গে বৌমার সম্পর্ক বেশ ভালো। এমনকি শাশুড়ি মায়ের সঙ্গে বিকিনি পড়ে ঘুরে বেড়াতেও দ্বিধাবোধ করেন না বেবো। আর দুজনেই একসাথে খুব খুশি মেজাজে সময় কাটান। আর এখন তো তাদের পরিবারে এসেছে নতুন অতিথি। সইফের চতুর্থ সন্তান আসার আনন্দে ডগোমগো শর্মিলা ঠাকুর।

Advertisements