শেষ করেছেন অনেকের কেরিয়ার! নেপোটিজম বিতর্কে বিস্ফোরক অভিনেত্রী ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত

Nepotism

অভিষেক চট্টোপাধ্যায়ের মৃত্যুর পর যেন স্বজনপোষণের অভিযোগ আরো তীব্র হয়ে উঠেছে টলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে। ঋতুপর্ণা সেনগুপ্তর বিরুদ্ধে বিস্ফোরক অভিযোগ করেন কিছুদিন আগে তার স্ত্রী। এমনকি শ্রীলেখা মিত্র অভিযোগ করেছিলেন যে স্বজনপোষণের রানী হলেন ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত। তিনি অফিশিয়ালি টলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে নেপোটিজম এনেছিলেন। প্রসেনজিৎ এবং ঋতুপর্ণার জুটির জন্য রীতিমতো ঘরে বসে গিয়েছেন বহু জনপ্রিয় নায়ক নায়িকা। এমন অভিযোগের আঙুল উঠে এসেছে বারবার তাদের দিকে। কিন্তু এই বিষয়ে খুব কম মুখ খুলতে দেখা যায় তাদের। তবে একবার এই নেপোটিজমের অভিযোগের বিরুদ্ধে নীরবতা ভেঙ্গেছিলেন ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত। তিনি তখন ঠিক কি বলেছিলেন?

তিনি স্পষ্ট জানান যে এ বিষয়ে তার কোনো বক্তব্যই নেই। কারণ তিনি টলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে পরিশ্রম করে নিজের জায়গা তৈরি করেছেন। তার নিজের কোন স্বজনপোষণের ভরকেন্দ্র ছিল না। আমার পরিবারের এর আগে কেউ এই ইন্ডাস্ট্রিতে ছিলনা। তার প্রতিটি কাজই তার পরের কাজের ভাগ্য নির্ধারণ করে দিত। যে কোন সিনেমায় হাত দিলেই সেই সিনেমা সোনা হয়ে যেত এমনটাই জানিয়েছেন ঋতুপর্ণা। যদি আগের কাজ অসম্ভব সাফল্য পেত তাহলেই আবার কাজের জন্য ডাকতেন প্রযোজকরা। এমনও হয়েছে পরিচালকরা লাইন দিয়ে বসেছিলেন তাঁকে সিনেমায় নেওয়ার জন্য। এমনকি নিজেদের মধ্যে মারামারিও করতেন পরিচালকরা কে ঋতুপর্ণা সেনগুপ্তকে নিজের সিনেমার নায়িকা করবেন এই নিয়ে।

সেভাবে অভিযোগ তুলতে গেলে অভিনেত্রী নিজেই স্বজনপোষণের শিকার হয়েছেন বলে জানান। কিন্তু তিনি এই বিষয়টিকে সেভাবে দেখেন না। ইন্ডাস্ট্রিতে টিকে থাকার একটি অঙ্গ হিসেবেই তিনি এটিকে বিবেচনা করেন। সব সময় একটা খেলায় জেতা যায় না। তিনি কখনো পড়ে গেছেন আবার নিজেকে সম্পূর্ণ অন্য রূপে গড়ে তুলেছেন।

তবে ঈশ্বরের কৃপায় তাকে কোনদিনও কাজের অভাব অনুভব করতে হয়নি। এমনটাই জানান তিনি। নানা প্রডিউসার ডিরেক্টররা বারবার তার সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন। তিনি অনেক ভাষায় অভিনয় করেছেন। শুধুমাত্র স্বজনপোষণের ওপর ভর করে এত সাফল্য পাওয়া সম্ভব নয় বলে জানান তিনি।

তবে হিন্দিতে ভাগ্য পরীক্ষা করতে গিয়ে তিনি প্রথম সারির অভিনেত্রী হতে পারেননি। তাকে বাংলাতেই ফিরে আসতে হয়েছে। এই কথা তিনি অকপটে স্বীকার করে নেন। বলিউডের ব্যস্ত আদব-কায়দার সঙ্গে তিনি নিজেকে মানিয়ে উঠতে পারছিলেন না বলে জানান। আবার তিনি সেভাবে চেষ্টা করেননি বলিউডে তার সঙ্গে ছিল সংসারের চাপ। তবে বাংলার যে তিনি এক নম্বর অভিনেত্রী তা বলার আর কোন অপেক্ষা রাখে না