Saturday, January 22, 2022

বঞ্চিত হয়েছেন একাধিক জাতীয় পুরষ্কার থেকে, দাপুটে অভিনেত্রী হয়েও যোগ্য সম্মান পাননি রীতা কয়রাল

বাংলা সিনেমার প্রথম সারিতে যে কয়েকজন প্রতিভাবান খল নায়িকাকে টিভির পর্দায় রাজ করতে দেখা গেছে তাদের মধ্যে অন্যতম রিতা কয়রাল। নিজের ক্যারিয়ারে একাধিক হিট ছবি করলেও ইন্ডাস্ট্রি তে পাননি উপযুক্ত সম্মান। কিন্তু কেন এই বৈষম্য! কেবল নেগেটিভ চরিত্রে অভিনয়ের জন্যই?Rita Koiralবাড়ির সবথেকে বাধ্য ছোটো বউয়ের বিরুদ্ধে চক্রান্ত হোক কিম্বা শাশুড়ির উপর মুখ ঝামটা দেওয়া রিতা কয়রালের অভিনয়ে জীবন্ত হয়ে উঠত চরিত্র। ১৯৫৯ সালে কলকাতায় এক মধ্যবিত্ত পরিবারে জন্ম। খুব অল্প বয়স থেকেই তার লাইম লাইটে আসা। প্রথম ধারাবাহিক “জননী” তে কাজ করে সাফল্য। এরপর একের পর এক ছবি রীতার স্বতন্ত্র পরিচয় তৈরি করেছিল। তবে অভিনয় নয় সংবাদ পাঠিকা হিসেবে কাজ শুরু করেন তিনি। দীর্ঘ অভিনয় ক্যারিয়ারে “বড়বৌ” “বিয়ের ফুল” “১০ ই জুলাই” “দত্ত ভার্সেস দত্ত” ” পূজা” ” বেয়াদব” “জন্মদাতা” সহ একাধিক ছবিতে কাজ করেছেন। অভিনয়ের জন্য জাতীয় পুরস্কারে মনোনীত হয়েছিল তার নাম।Rita Koiralঋতুপর্ণ ঘোষের “বাড়িওয়ালী” ছবিতে মুখ্য ভূমিকায় অভিনয় করেছিলেন বলি অভিনেত্রী কিরণ খের। কিন্তু অবাঙালি কিরণের ডাবিং আর্টিস্ট প্রয়োজন ছিল। আর সেই সংলাপ ডাব করেন রীতা। যখন একাধিক পুরুস্কারের জন্য নির্বাচিত হয় “বাড়িওয়ালি” তখন একবার ডেকে জানানো হয়নি রীতাকে। এমনকি মুম্বাই থেকে ফোনে ছবির প্রযোজক অনুপম খের রীতাকে জানিয়েছিলেন এই সত্যি গোপন রাখতে। কথা প্রসঙ্গে একটি রিয়ালিটি শো তে এসে নিজের মুখেই এই চরম অপমানের কথা জানিয়েছেন অভিনেত্রী। শুধু সিনেমা নয় ” রাখি বন্ধন” , “সাত পাকে বাঁধা” সিরিয়ালে অবতীর্ণ হয়েছিলেন রীতা।

বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছিলেন সহ অভিনেতা সৌমিত্র ব্যানার্জির সঙ্গে,কিন্তু টেকেনি সম্পর্ক। মারণ ব্যাধি ক্যান্সার গ্রাস করেছিল রীতার জীবনকে। বেশ কয়েকদিন লিভার ক্যান্সারের ভুগছিলেন তিনি। কিন্তু কেউ খোঁজ রাখেননি তার। একমাত্র মেয়েকে নিয়ে থাকতেন একাই। ২০১৭ সালের নভেম্বর মাসে নিজ বাসভবনে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন অভিনেত্রী।

⚡ Trending News

আরও পড়ুন