×
বিনোদনভাইরাল ভিডিও

পরনে নীল নাইটি কোমরে লাল গামছা বেঁধে উদ্দাম নৃত্য রানু মণ্ডলের, ভাইরাল ভিডিও

Advertisements
Advertisements

লকডাউনের সময় কেউ তাঁর খোঁজ নেননি। কিন্তু লকডাউন কাটতেই অধিকাংশ ইউটিউবারদের গন্তব্য রানু মণ্ডল (Ranu Mondal)-এর বাড়ি। ইতিমধ্যে তাঁকে নিয়ে বলিউডে তৈরি হচ্ছে বায়োপিক। পরিচালনা করছেন হৃষিকেশ মণ্ডল (Hrishikesh Mondal)। ফিল্মের নাম ‘মিস রাণু মারিয়া’। ইদানিং রাণুর ভিডিও ভাইরাল হতে শুরু করেছে আবারও। সম্প্রতি কোমরে গামছা পেঁচিয়ে উদ্দাম নাচ করেছেন রাণু। যথারীতি সেই ভিডিও নেটদুনিয়ায় আলোড়ন তুলেছে।

Advertisements

ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, রাণুর পরনে নীল নাইটি। কোমরে লাল গামছা বেঁধে উদ্দাম নাচ করছেন রাণু। রাণুর মুখে হাসি। তিনি নিজের মতো করে নাচকে উপভোগ করছেন। এই ভিডিও ভাইরাল হতেই নেটদুনিয়ায় যথারীতি রাণুকে ঘিরে শুরু হয় কুরুচিপূর্ণ ট্রোল, হাসির রোল। কিন্তু মহিলা নেটিজেনদের একাংশ ট্রোলের প্রতিবাদ করেছেন। অনেকেই মনে করছেন, রাণু মানসিক ভারসাম্যহীন। তাঁর আশেপাশের মানুষদের বক্তব্যও তাই। কিন্তু কেউ কি একবারও তলিয়ে দেখেছেন, ভিডিওটি কোথা থেকে এল?

রাণুর নিজের কোনো স্মার্টফোন বা ক্যামেরাওয়ালা ফোন নেই। ইউটিউবের ভিডিওগুলি সার্চ করলেই তা জানা যাবে। সম্ভবতঃ কোনো ইউটিউবার রাণুকে নাচ দেখাতে বলেছিলেন। রাণু সরল বিশ্বাসে নাচ করার পর তা ইচ্ছাকৃত ভাইরাল করা হয়েছে যাতে ওই ইউটিউব চ্যানেলের সাবস্ক্রাইবার বাড়ে। ফলে বোঝাই যাচ্ছে, রাণুকে যথেচ্ছ ব্যবহার করা হচ্ছে। একসময় মিস রাণু মারিয়া নামে অসংখ্য স্টেজ শো করে বেড়ানো রাণুকে আজ সকলের হাসির পাত্রী করে তোলা হচ্ছে। কিন্তু কেউ জিজ্ঞাসা করেনি, কেন রাণু মাঝে মাঝেই আলটপকা মন্তব্য করে ফেলেন? মানসিক ভারসাম্যহীনের মতো আচরণ করেন?

মিস রাণু মারিয়া নামে স্টেজ শো করার সময় দীনেশ মণ্ডল (Dinesh Mondal) নামে এক ব্যক্তির সঙ্গে রাণুর বিয়ে হয়। শৈশবে অনাথ রাণুকে বড় করেছেন তাঁর মাসি-মেসো। কিন্তু কন্যাসন্তানের জন্ম দেওয়ার পর ওই ব্যক্তি রাণুকে বলেন,নিজের খরচ নিজে যোগাতে। মেয়েকে অনেক কষ্ট করে বড় করার পর মেয়েও কিন্তু রাণুকে একই কথা বলে ছেড়ে চলে যান। আজ দিনের শেষে রাণুর সঙ্গী একটি বাইবেল। ভগবানের উপর আস্থা রাখেন তিনি। রাণু জানেন, তাঁর খ্যাতি ক্ষণিকের। 2019 সাল থেকে যে ‘সিলসিলা’ শুরু হয়েছে, রাণুকে তা খ্যাতির থেকে কুখ্যাত করেছে বেশি। সমাজ এরকমই। রাণুকে বিচার না করেই সমাজের নীতিবাগীশরা অনেক রায় শুনিয়ে দিয়েছেন। কিন্তু তবু রাণু বেঁচে আছেন নিজের মতো করে।

Advertisements