বিনোদন

দল থেকে বহিস্কার করলেও অফার রয়েছে ফিল্মে, স্পষ্ট জানালেন বং ক্রাশ মদন মিত্র

কামারহাটির বিধায়ক মদন মিত্র (Madan Mitra) সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতে ক্রমশ আত্মবিশ্বাসী হয়ে উঠেছেন। ইদানিং তিনি প্রায়ই ফেসবুকে লাইভ করেন। তার উপর ইন্সটাগ্রাম রিল তো রয়েছেই। তিনি হেঁটে আসছেন, এটাও বর্তমানে ইন্সটাগ্রাম রিল। পোশাকেও তাঁর মেজাজের মতোই রঙিন ছোঁয়া। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee) তো বলেই দিয়েছেন, মদন একটু রঙিন ছেলে। তবে মদন কখনও নিজের ভবিষ্যৎ নিয়ে চিন্তিত নন। তিনি জানেন, বিনোদন জগত তো আছেই।

বারবার কথায় কথায় ফেসবুক লাইভ করে ও বিতর্কিত মন্তব্যের জেরে এই মুহূর্তে মদন দলের শাস্তির মুখে পড়তে পারেন বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। কিছুদিন আগেও দলীয় শৃঙ্খলা রক্ষা কমিটির চেয়ারম্যান পার্থ চট্টোপাধ্যায় (Partha Chatterjee) সতর্ক করেছিলেন মদনকে। কিন্তু তিনি তো মদন। ফলে আবারও বৃহস্পতিবার দুর্গাপুরে বেফাঁস মন্তব্য করে দলের অস্বস্তি বাড়িয়েছেন মদন। সেই ঘটনা নিয়ে দলের অন্দরে শুরু হয়েছে তোলপাড়। ফলে মদনের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা গ্রহণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস। মদনকে শাস্তির ব্যাপারে জিজ্ঞাসা করা হলেও তিনি ‘কুল’।

মদন জানিয়েছেন, দলের তরফে এখনও তাঁকে কিছুই জানানো হয়নি। এমনকি তাঁর কাছে আসেনি কোনো চিঠি। তবে তিনি দলের বিরুদ্ধে কোনও মন্তব্য করেননি বলে মদনের দাবি। তবে চিঠি এলে মদন অবশ্যই উত্তর দেবেন বলে জানিয়েছেন। দল যদি শাস্তি দেয়, তাহলেও মাথা পেতে নেবেন। তবে দল যদি চিরকালের মতো তাঁকে তাড়িয়ে দেয়, তাহলে তাঁর কাছে ফিল্মের অফার রয়েছে বলে জানিয়েছেন মদন। তাই তিনি এইসব নিয়ে ভাবছেন না।

মদন বলেছেন, তাঁর হৃদয়ে রয়েছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় (Abhishek Banerjee) ও চোখে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। অভিষেক তাঁর ভাইয়ের মতো হলেও মমতার নির্দেশ অগ্রাহ্য করবেন না বলে জানিয়েছেন মদন। কিন্তু এর আগে মমতা তাঁকে বলেছিলেন, কথায় কথায় কেউ ফেসবুক লাইভ করে না। মদন তা মানতে পারেন না। তাঁর মতে, সোশ্যাল মিডিয়া ব্যক্তিগত জায়গা। তার জন্য পারমিশন নিতে লাগে না। তবে এরপরেও দল তাড়িয়ে দিলে তাঁর কিছু করার নেই। কে বলেছে, মদনের কিছু করার নেই! আরেকটা নাহয় ফেসবুক লাইভ করবেন অথবা ইন্সটাগ্রাম রিল! ওহ, লাভলি!

Related Articles