বিনোদন

আর চাননা মনুষ্য রূপে জন্মগ্রহণ, কিসের আক্ষেপ লতাজির!

‘মেরি আওয়াজ হি মেরি প্যাহেচান হ্যায়’- কোকিলকন্ঠী লতা মঙ্গেশকরের সুরেলা কন্ঠ তাঁকে সত্যিই আলাদা পরিচয় দিয়েছে। যে কণ্ঠের সামনে সারা সংগীত জগৎ মাথা নত করে। তাঁর গান ছুঁয়ে গেছে প্রতিটি হৃদয়ে। কিন্তু এক সাক্ষাৎকারে লতা মঙ্গেশকর কেন বলেছিলেন যে তিনি নিজেই চাননি পরবর্তী জীবনে লতা হয়ে আসতে?

লতা মঙ্গেশকর সম্পর্কিত এই তথ্যটি জাভেদ আখতার তাঁর শোতে জানিয়েছিলেন। লতা মঙ্গেশকর বলেছিলেন – আমি পরের জীবনে আর লতা মঙ্গেশকর হতে চাই না। অদ্ভুত বিষয় তাই না! সারা সুর ও তাল জগৎ যেখানে লতাজির মতো হতে চেয়েছিলেন। সেখানে দাঁড়িয়ে নিজের পরিচয় কে তিনি পরজন্মে ফিরে পেতে চাননি।

লতাজির কাছে যখন এমন ইচ্ছের কারণ জানতে চাওয়া হয়েছিল তিনি জানিয়েছিলেন, “লতা হতে গিয়ে বা লতা হয়ে যে কি কষ্ট সহ্য করতে হয়েছে সে আমিই জানি।” লতা মঙ্গেশকরের এই আলোচনার পিছনের বেদনার স্তরগুলি খুলে জাভেদ আখতার লতাজির এমন বক্তব্যের অল্প-বিস্তর বর্ণনাও করেছিলেন।

জাভেদ আখতার বলেছিলেন, ‘লতা জীবনে কোনো দুঃখ দেখেননি। দেখেছেন সংগ্রামী জীবন। শৈশবে দুঃখের পাহাড় বয়ে বেড়াতে হয়েছে। তাই বাস্তবে তিনি তার জীবনে যে কষ্টগুলি অতিক্রম করেছিলেন তা এতটাই গভীর ছিল যে তিনি আবার লতা হয়ে উঠতে ভয় পেয়েছিলেন। শেষমেষ লতাজি নিজের অনুকরণকারীদের উদ্দেশ্যে বলেছিলেন, “আমাকে অনুকরণ কোরোনা বরং অনুসরণ করতে পারো।”

Related Articles