×
বিনোদন

মা মৃত্যুশয্যায়, তার পাশে বসেই ডায়লগ মুখস্থ করতে হয়েছে, জীবনসংগ্রামের গল্প শোনালেন অভিনেত্রী শ্রীপর্ণা

Advertisements
Advertisements

টেলি ধারাবাহিকের এক অন্যতম জনপ্রিয় মুখ ‘শ্রীপর্ণা রায়’ (Shriparna Roy), যে একাধিক বাংলা সিরিয়ালের মাধ্যমে দর্শক মনে বেশ ভালই জায়গা করে নিয়েছে। কখনো টুসু, কখনো পারমিতা, কখনো পার্বতী রূপে সকলের ড্রইংরুমে এসে ধরা দিয়েছে শ্রীপর্ণা। তবে অভিনয় জগতের লাইট- ক্যামেরা-অ্যাকশন এই সবকিছু যতই ঝকঝকে থাকুক না কেন, এর পিছনের জীবনটাও যে অন্ধকারাচ্ছন্ন থাকতে পারে; সে কথা প্রমাণ করে দিলেন অভিনেত্রী শ্রীপর্ণা রায়।

Advertisements

বর্তমানে অবশ্য অভিনয় জগত থেকে বেশ কিছুটা দূরে আছেন তিনি। শেষবারের মতো জি বাংলার জনপ্রিয় সিরিয়াল ‘কড়ি খেলা’র মুখ্য চরিত্র ছিলেন শ্রীপর্ণা ওরফে সকলের প্রিয় ‘পারমিতা’। এছাড়া ‘টনিক’ সিনেমাতেও এক চরিত্রে দেখা মিলেছিল তার।

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারের মাধ্যমে তার জীবনের চড়াই-উতরাইয়ের নানান গল্প সকলের সাথে ভাগ করে নিলেন অভিনেত্রী। তিনি জানিয়েছেন যে, ছোট থেকেই অভিনয় করার জন্য পাগল ছিলেন তিনি আর এই কাজে তার বাবা-মা তাকে অবশ্যই সাপোর্ট করতেন। একবার অডিশনে তাকে এক ভয়ঙ্কর স্টান্ট করে দেখাতে বলা হয়েছিল এবং শ্রীপর্ণা সেটি নির্দ্বিধায় করে ফেলেছিল! তবে ভালো জিনিসের পাশাপাশি, তার ব্যক্তিগত জীবনেও অনেক আঘাত হেনেছিল এই অভিনয় জগত।

 

View this post on Instagram

 

Shared post on

সে জানায় তার মা যখন হাসপাতালে ভর্তি ছিল, সেই সময় মায়ের বেডের পাশে বসে ডায়লগ মুখস্ত করতে হয়েছিল তাকে। এরপরে তার মা শয্যাশায়ী হলেও, শুটিংয়ের কাজে যেতে হয়েছিল শ্রীপর্ণাকে। এমনকি তার মায়ের মৃত্যুর পরের দিন পর্যন্ত তাকে শুটিংয়ে যেতে হয়েছিল! তাকে বলা হয়েছিল, যদি সে শুটিংয়ে না আসে তাহলে তাকে সেই চরিত্র থেকে বাদ দেওয়া হতে পারে। এমনটা হয়েও ছিল, টিআরপি কমে যাওয়ার দোহাই দিয়ে তাকে বাদ দিয়ে দেওয়া হয়েছিল। অভিনয় থেকে এরকমই নানান তিক্ত অভিজ্ঞতার সাক্ষী হয়ে আছে, শ্রীপর্ণা সহ সকল টিভির তারকারা।

Advertisements