Sunday, November 28, 2021

পরিচালকের হাতে একবার চড় খেয়েই অভিনয় জগতে বাজিমাত করেছিলেন নায়িকা তনুজা

বলিউডের অন্যতম খ্যাতনামা অভিনেত্রী হলেন তনুজা। তিনি ছিলেন নামজাদা পরিবারে সন্তান। তার মা শোভনাও ছিলেন বলিউডের একজন খ্যাতনামা অভিনেত্রী। তার অভিনয় দক্ষতার মাধ্যমে তিনি খুব কম সময়ে দর্শকদের মন জয় করে নিয়েছিলেন। ১৯৬১ সালে কিদার শর্মা পরিচালিত “হামারি ইয়াদ আয়েগি ” ছবিতে তনুজা অভিনয় করেছিলেন । শোনা যায় এই সিনেমার শুটিং চলাকালীন পরিচালকের হতে চর খেয়ে ছিলেন তনুজা।

কিন্তু কেনো! আসুন জেনে নেওয়া যাক, এমন কি ঘটেছিলো যার জন্যে তিনি এই পরিস্থিতির সম্মুখীন হয়েছিলেন। জানা যায় যে, এই সিনেমাটিকে কেন্দ্র করে শুটিং করছিলেন তনুজা। আর সেই দিন পরিচালক তাকে একটি দুঃখের সিন শুটিং করার কথা বলেছিলেন। আর সেই মতো শ্যুটিং শুরু হয়, কিন্তু পরিচালক তাকে যতোবার অ্যাকশন বলছিলেন তিনি কান্নার বদলে হেসে ফেলছিলেন। আর তারপর পরিচালক কিদার শর্মা অভিনেত্রী তনুজাকে একটি চর মেরেছিলেন।

জানা যায় যে, এই ঘটনার পর তনুজা পরিচালককে বলেন যে, সেই দিন তার কান্নার মন নেই তাই তিনি কাঁদতে পারছেন না এবং তারপর তিনি শুটিং ছেড়ে বাড়ি চলে যান এবং বাড়িতে গিয়ে তার মাকে তিনি পুরো বিষয়টি বিস্তারিত বলেন। তার মা শোভনা তখনই তাকে নিয়ে সেই শুটিং এর সেটে পৌঁছন এবং পরিচালকের সামনেই তার মেয়ে তনুজাকে চর মারেন এবং তনুজা কেঁদে ফেলেন, আর তারপর তিনি শুটিংটি শেষ করেন। জানা যায় যে সেই দিনের পর থেকে তনুজা তার সমস্ত শুটিং এর সেটে নিয়ম করে তার কাজ শেষ করতেন।

সেই দিনের ওই ঘটনাটি যদি না ঘটত তাহলে হয়তো তনুজা তার নিজের জীবনে ও অভিনয় জগতে সাফল্যের চরম শিখরে হয়তো পৌঁছতে পারতেন না। তার এই সিনেমাটিতে তার বিপরীতে ছিলেন পরিচালকের ছেলে অশোক শর্মা। জানা যায় যে সেই সময় তার বোন নূতনও তার কাজের মাধ্যমে বলিউডে জায়গা করে নিয়েছিলেন।

⚡ Trending News

আরও পড়ুন