বিনোদন

জনপ্রিয় ধারাবাহিক ‘মিঠাই ‘, বয়কটের ডাক বাংলাদেশী অনুরাগীদের

এই মুহূর্তে দাঁড়িয়ে ‘মিঠাই’ (Mithai) ধারাবাহিকের জনপ্রিয়তা তুঙ্গে। মাসের পর মাস ধরে এই সিরিয়াল হয়ে আসছে সেরার সেরা। টিআরপি তালিকায় এই ধারাবাহিক রয়েছে সবার শীর্ষে। তবে, শুধুমাত্র এপার বাঙলাতেই নয় ওপার বাংলাতেও সমানভাবে জনপ্রিয় এই গান। তুফান মেল ও উচ্ছে বাবু যে সবার মনেই বেশ ভালোরকম জায়গা করে নিয়ে তা নিয়ে দ্বিমত নেই। কিন্তু হঠাৎ করেই তাল কাটলো সিরিয়ালের।

রবিবারের রাতের এপিসোডের ভিডিও (Video) ক্লিপে উঠে এসেছে সিডের (Sid) সম্বর্ধনার অনুষ্ঠান। যেখানে উপস্থিত গোটা মোদক পরিবার। এমনকি উপস্থিত ওমি আগরওয়াল। তাহলে কি আবারও সিডের সঙ্গে তাঁর কোনো ঝামেলা বাঁধবে? এই চিন্তাতেই যখন বিভোর নেটিজেনরা তখনই কারোর কারোর নজরে এসেছে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের দিকে। উদ্বোধনী সংগীত হিসেবে ‘আমার সোনার বাংলা আমি তোমায় ভালোবাসি’ গানটি বেছে নিয়েছে সিরিয়াল নির্মাতারা।


কিন্তু ওখানে উপস্থিত সকলেই দর্শকাশন জুড়ে রয়েছেন। আর সেই নিয়েই প্রশ্ন তুলেছেন বাংলাদেশী নাগরিকরা। তাঁদের কথা অনুযায়ী বাংলাদেশের জাতীয় সংগীত গাওয়ার সময় কেন মানুষ পা তুলে বসে থাকবে? প্রতিবেশী রাষ্ট্রের জাতীয় সংগীত হিসেবে কেন তাঁরা সম্মান জানাবে না? এই নিয়েই গর্জে ওঠেন বাংলাদেশের মানুষ। যদিও মিঠাইয়েকে (Mithai) স্টেজের এক পাশে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গিয়েছে।

 

তা বাদে মোদক পরিবারের সকলকেই বসে থাকতে দেখা গিয়েছে। আর এই নিয়েই এক নেটিজেন লেখেন যে-‘আজ জনপ্রিয় ধারাবাহিক মিঠাই এ বাংলাদেশি অর্থাৎ বাংলাদেশের জাতীয় সঙ্গীত গাওয়া হলো। উল্লেখ্য যে, এটা একটা রবীন্দ্র সঙ্গীতও বটে। তবে যেটা আলোচ্য সেটা হচ্ছে, বাংলাদেশিদের খুশি করার লক্ষ্যেই এই গানটা গাওয়া হয়, নয়তো কি রবীন্দ্র সঙ্গীতের অভাব! যদিও উদ্যোগটা ভালো ছিল, তবে একজন বাংলাদেশি হিসেবে আমি অপমানিত বোধ করছি এবং তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি’।

এমনকি ওই নেটিজেন আরও লেখেন যে-‘ পরিচালক আমাদের খুশি করতে গিয়ে উল্টো অপমান করেছেন। কারণ যে দেশের জাতীয় সংগীতই হোকনা কেন, তার একটা সম্মান আছে। আর আমরা সেক্ষেত্রে দাঁড়িয়ে সম্মানটা প্রদর্শন করি। কিন্তু এখানে সেরকম কিছুই দেখলাম না। মানলাম এটা তাঁদের দেশীয় সঙ্গীত, তবুও তারও একটা সম্মান আছে তাই একজন মানুষ হিসেবেও আমি এর তীব্র সমালোচনা করছি’।

যদিও এক্ষেত্রে অনেকেই যুবকের এই কথা সমর্থন করলেও অনেকেই আবার ‘মিঠাই’ টিমের পাশে দাঁড়িয়েছেন। তাঁদের বক্তব্য অনুযায়ী কেবলমাত্র রবীন্দ্রসংগীত হিসেবে ‘মিঠাই’ ধারাবাহিকে এই গানটি পরিবেশন করা হয়েছে। তাই এই গান প্রসঙ্গে এই ধরণের মন্তব্য উচিত নয়। রবিবারের এপিসোড প্রসঙ্গে এই ধরণের দ্বিমত দেখা গিয়েছে।

বিতর্কিত দৃশ্য

তবে, আপনার কি মতামত? যে অন্য রাষ্ট্রের জাতীয় সংগীত গাওয়া নিয়ে আরেকটু দায়িত্ববান হওয়া উচিত ছিল ‘মিঠাই’ টিমের?

Related Articles