স্তনের আকার নিয়ে হেনস্থার মুখে পড়তে হয়েছিল অন্যন্যাকে, সার্জারি করিয়ে বাড়ানোর পরামর্শ

Ananya Panday

গত মাসে প্লাস্টিক সার্জারির মাধ্যমে স্লিম হতে গিয়ে প্রাণ হারিয়েছেন দক্ষিণী অভিনেত্রী চেতনা রাজ (Chetna Raj)। কিন্তু অভিনেত্রীরা কি সত্যিই স্বেচ্ছায় প্লাস্টিক সার্জারির শরণাপন্ন হন নাকি তাঁদের বাধ্য করা হয়? এই প্রসঙ্গে মুখ খুলেছেন অনন্যা পান্ডে (Ananya Panday)।

অনন্যা বরাবর একটু বেশি রোগা হলেও চলনসই। কিন্তু বলিউডে কেরিয়ারের শুরুর দিকে তাঁকে যথেষ্ট অপদস্থ করা হয়েছিল বারবার তাঁর ফিগার কারেকশনের কথা বলে। একটি সাক্ষাৎকারে অনন্যা জানিয়েছেন, তাঁকে বারবার সিলিকন ব্রেস্ট ইমপ্ল্যান্টের মাধ্যমে স্তন ভারি করার পরামর্শ দেওয়া হত। প্রায়ই তাঁকে নিজের শরীর নিয়ে শুনতে হত অশালীন মন্তব্য। অনন্যাকে বলা হত, তাঁর স্তন চোখে পড়ার মতো নয়। অনেকে বলতেন, ওজন বাড়িয়ে চেহারা ভারি করতে। এমনকি অনেকে কসমেটিক সার্জারির মাধ্যমে তাঁর মুখের সৌন্দর্য বাড়ানোর পরামর্শ দিতেন।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Ananya 💛💫 (@ananyapanday)


কিন্তু অনন্যা মনে করেন, শুধুমাত্র কোমর অথবা স্তনের মাপ তাঁর পরিচয় নয়। তাঁর মতে, কোনো মানুষকে তাঁর শরীর দিয়ে বিচারের থেকে খারাপ কিছু হতে পারে না। এমনকি অভিনয়ে আসার আগেও শৈশব থেকে অনন্যাকে তাঁর চেহারা নিয়ে কটাক্ষ শুনতে হয়েছে।

মা-বাবার সাথে হেঁটে গেলে অনন্যাকে শুনতে হত ছেলেদের মতো তাঁর সবকিছু সমান অথবা ফ্ল্যাট স্ক্রিন জাতীয় মন্তব্য। প্লাস্টিক সার্জারির ফলে কখনও যদি কোনো অভিনেত্রীর চেহারা বীভৎস হয়ে যায়, তার দায় কি নেবে সমাজ তথা বলিউড?

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Ananya 💛💫 (@ananyapanday)