বিনোদন

রানী মুখার্জির বাড়ি নয় নিশ্চিত রাজ প্রাসাদ! রইল অন্দরমহলের ছবি

ভারতীয় চলচ্চিত্র জগতের একজন অত্যন্ত জনপ্রিয় অভিনেত্রী রানী মুখার্জী (Rani Mukherjee)। ১৯৭৮ সালে মুখার্জী-সমর্থ পরিবারে তাঁর জন্মগ্রহণ হয়। সিনেমাকেন্দ্রিক পরিবারে জন্মগ্রহণ করলেও পেশা হিসেবে অভিনয়কে বেছে নেওয়ার ইচ্ছে তাঁর ছিল না। কিন্তু কম বয়সেই তিনি বাবার পরিচালিত বাংলা সিনেমা বিয়ের ফুল (১৯৯৬)-তে পার্শ্বচরিত্রে অভিনয় করেছিলেন।

এরপরে তাঁর মায়ের অনুরোধে ‘রাজা কি আয়েগি বারাত’ (১৯৯৭) নামক সামাজিক নাট্য সিনেমাতে রানীকে মূখ্য ভূমিকায় দেখা যায়। রানীর বাবা রাম মুখার্জী একজন সুপরিচিত পরিচালক ছিলেন, আর তাঁর মা কৃষ্ণা মুখার্জী সিনেমায় গান গাইতেন, তাঁর ভাই রাজা মুখার্জী একজন চিত্র প্রযোজক, তাঁর মাসি হলেন প্রখ্যাত চিত্রনায়িকা দেবশ্রী রায়। আরেক জনপ্রিয় অভিনেত্রী কাজল সম্পর্কে তাঁর বোন হন। রানী বিখ্যাত পরিচালক-প্রযোজক যশ চোপড়ার বড় ছেলে পরিচালক-প্রযোজক আদিত্য চোপড়ার সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছেন।

এরপর ১৯৯৮ সালে ‘কুছ কুছ হোতা হ্যায়’ (১৯৯৮) সিনেমার মাধ্যমে মূল অভিনয় জগতে প্রবেশ করেন তিনি, সেই সিনেমায় শাহরুখ খানের বিপরীতে এক অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ পার্শ্ব চরিত্রে তিনি অভিনয় করেছিলেন। কিন্তু পরবর্তী তিন বছর তাঁর সিনেমা বক্স অফিসে সেইভাবে সাফল্য লাভ করেনি।

যশ রাজ ফিল্মসের ‘সাথিয়া’ (২০০২) নাট্য-সিনেমায় অভিনয় করার পর তাঁর কর্মজীবনে সাফল্য আসে। তারপর রানীকে আর পেছন ফিরে তাকাতে হয়নি। ২০০০-এর দশকে তিনি হয়ে ওঠেন অত্যন্ত জনপ্রিয় ও সর্বোচ্চ উপার্জনকারী নায়িকা। তাঁর কিছু উল্লেখযোগ্য সিনেমা হল- ‘যুবা’ (২০০৪), ‘হাম তুম’ (২০০৪), ‘বীর-জারা’ (২০০৪), ‘ব্ল্যাক’ (২০০৫), ‘বান্টি অর বাবলি’ (২০০৫), ‘কভি আলবিদা না কেহনা’ (২০০৬), ‘নো ওয়ান কিলড জ্যাসিকা’ (২০১১), ‘তালাস: দ্য অ্যান্সার লাইস উইদিন’ (২০১২),‌ ‘মারদানি’ (২০১৪), ‘হিঁচকি’ (২০১৮) প্রমুখ। শুধু বক্স অফিসে সাফল্য ও দর্শকমহলে জনপ্রিয়তা লাভ নয়, তাঁর ঝুলিতে সাতটি ফিল্মফেয়ার পুরস্কারসহ আরো একাধিক পুরস্কার রয়েছে।

কর্মজীবনের এই বিপুল সাফল্যের পর স্বাভাবিকভাবেই রানী আর্থিকভাবেও সমৃদ্ধ হয়েছেন। এছাড়াও শোনা যায়, তাঁর নিজস্ব হোটেল ও রেস্টুরেন্ট‌ও রয়েছে এবং সেই ব্যবসা থেকে তিনি বেশ মোটা টাকা লাভ করেন। বিভিন্ন সূত্রের খবর অনুযায়ী বর্তমানে রানীর মোট সম্পত্তির পরিমাণ প্রায় ২০০ কোটি টাকা। তাঁকে এখন আর পর্দায় সেভাবে দেখা যায় না, স্বামী-সন্তান-সংসার প্রভৃতি বিষয়ে তিনি এখন মনোনিবেশ করেছেন। তবুও বিভিন্ন কারণে হামেশাই তিনি খবরের শিরোনামে ধীরে উঠে আসেন।

সম্প্রতি বাড়ি কেনার বিষয় নিয়ে তাঁকে কেন্দ্র করে আবার চর্চা শুরু হয়েছে। মুম্ব‌ই শহরে বলিউড তারকাদের অন্যতম পছন্দের এক জায়গা খার এলাকা, এই এলাকাতে এক বিলাসবহুল বাড়ি কিনেছেন রানী। তিনি যে বিল্ডিংয়ে থাকবেন সেটির নাম ‘রুস্তমজি প্যারামাউন্ট’, এটি নির্মাণ করেছেন বোমান রুস্তম রুস্তমজি।

এই বাড়িটি অত্যন্ত আধুনিক ডিজাইন ও স্টাইলে প্রস্তুত করা হয়েছে। মিডিয়া রিপোর্টে বলা হয়েছে, রানী মুখার্জির এই বাড়ির দাম ৭ কোটি টাকারও বেশি। রানীর এই বাড়িতে মোট দুটি পার্কিং এলাকা রয়েছে।

৩৫৪৫ বর্গফুট জায়গার মধ্যে তৈরি হয়েছে এই বাড়ি, এত বড়ো আয়তন হ‌ওয়ার জন্য বাড়ির বারান্দাতেই বড়ো পার্টির আয়োজন করা সম্ভব। আউটডোর ফিটনেস স্টেশন, সুইমিং পুল, গেমিং এরিয়া, মিনি থিয়েটার ও বাচ্চাদের খেলার জায়গা-সহ আরো অনেক সুবিধা এই বিলাসবহুল বাড়িটিতে রয়েছে।এছাড়াও বাড়িটিতে একটি বড় লাইব্রেরিও তৈরি করা হয়েছে বলে জানা গেছে, যেখানে নিজের পছন্দের বইয়ের সংগ্রহ রেখেছেন এই অভিনেত্রী। রানীর এই নতুন ঠিকানায় প্রতিবেশী রয়েছেন অভিনেতা টাইগার শ্রফ, অভিনেত্রী দিশা পাটানি, ক্রিকেটার হার্দিক পান্ডিয়া ও ক্রুনাল পান্ডিয়া।

Related Articles